বাংলা একাডেমি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯

বাংলা একাডেমির সাধারণ পরিষদের ৪২তম বার্ষিক সভা ২০১৯


প্রকাশন তারিখ : 2019-12-28

বাংলা একাডেমির সাধারণ পরিষদের ৪২তম বার্ষিক সভা ১৩ই পৌষ ১৪২৬/২৮শে ডিসেম্বর ২০১৯ শনিবার বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়।

শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা’র পরিচালনায় সংগীত সংগঠন ‘সুরের ধারা’-এর শিল্পীদের সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের সঙ্গে জাতীয় পতাকা ও বাংলা একাডেমির পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সভার কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর ছিল পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ। দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রের প্রয়াত গুণী ব্যক্তিদের স্মরণে শোকপ্রস্তাব পাঠ ও তাঁদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
সভায় বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন এবং একাডেমির সচিব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট অবহিত করেন। একাডেমির সদস্যবৃন্দ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজেট সম্পর্কে সাধারণ আলোচনায় অংশ নেন। মহাপরিচালক সদস্যদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন এবং উত্থাপিত প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে বক্তব্য প্রদান করেন। সভায় ৮ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে অনুষ্ঠিত ৪১তম বার্ষিক সাধারণ সভার কার্যবিবরণী সারাদেশ থেকে আগত একাডেমির ফেলো, জীবনসদস্য ও সদস্যদের সম্মতিক্রমে অনুমোদন ঘোষণা করেন বার্ষিক সাধারণ সভা ২০১৯-এর সভাপতি এবং বাংলা একাডেমির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।
সভায় দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ৭ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ ২০১৯ এবং বাংলা একাডেমি পরিচালিত পাঁচটি পুরস্কার প্রদান করা হয়। বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ ২০১৯’প্রাপ্তরা হচ্ছেন : ১. সৈয়দ আনোয়ার হোসেনÑ(শিক্ষা ও গবেষণা); শেখ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ (প্রকৌশল); জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার (অব.) আব্দুল মালিক (চিকিৎসাসেবা); কুমুদিনী হাজং (সমাজসেবা); কাঙ্গালিনী সুফিয়া (সংগীত); আলী যাকের (সংস্কৃতি); এবং আসাদুজ্জামান নূর (সংস্কৃতি)।

প্রাবন্ধিক গবেষক ফরহাদ খান সাহিত্যিক মোহম্মদ বরকতুল্লাহ প্রবন্ধসাহিত্য পুরস্কার ২০১৯; কবি মহাদেব সাহা মযহারুল ইসলাম কবিতা পুরস্কার-২০১৯; কথাসাহিত্যিক পাপড়ি রহমান সা’দত আলি আখন্দ সাহিত্য পুরস্কার ২০১৯; অধ্যাপক শিশিরকুমার ভট্টাচার্য মেহের কবীর বিজ্ঞানসাহিত্য পুরস্কার ২০১৯ এবং মোকারম হোসেন নিসর্গ আখ্যান-গ্রন্থের জন হালীমা-শরফুদ্দীন বিজ্ঞান পুরস্কার-২০১৯-এ ভূষিত হয়েছেন। সাহিত্যিক মোহম্মদ বরকতুল্লাহ প্রবন্ধসাহিত্য পুরস্কার-এর অর্থমূল্য এক লক্ষ টাকা, মযহারুল ইসলাম কবিতা পুরস্কার-এর অর্থমূল্য এক লক্ষ টাকা, মেহের কবীর বিজ্ঞানসাহিত্য পুরস্কার-এর অর্থমূল্য এক লক্ষ টাকা, সা’দত আলি আখন্দ সাহিত্য পুরস্কার-এর অর্থমূল্য পঞ্চাশ হাজার টাকা এবং হালীমা-শরফুদ্দীন বিজ্ঞান পুরস্কার-এর অর্থমূল্য ত্রিশ হাজার টাকা।

ব্রিগেডিয়ার (অব.) আব্দুল মালিক, কুমুদিনী হাজং, কাঙ্গালিনী সুফিয়া এবং আলী যাকেরের অনুপস্থিতিতে তাঁদের পরিবারের সদস্যবৃন্দ ফেলোশিপ গ্রহণ করেন। কবি মহাদেব সাহার অনুপস্থিতিতে তাঁর প্রতিনিধি পুরস্কার গ্রহণ করেন। পুরস্কার ও ফেলোশিপপ্রাপ্ত গুণীজণ এবং তাঁদের প্রতিনিধিদের হাতে পুরস্কারের অর্থমূল্য, সম্মাননাপত্র, সম্মাননা-স্মারক ও ফুলেল শুভেচ্ছা তুলে দেন বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক আনিসুজ্জামান এবং মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করে হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, বাংলা একাডেমি সাম্প্রতিক সময়ে অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং গবেষণা-খাতে নতুন নতুন কর্মসূচি গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন করে চলেছে। এখন একাডেমি থেকে ৭টি বিষয়ভিত্তিক সাময়িকপত্র নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে যা এই প্রতিষ্ঠানের কর্মচাঞ্চল্য এবং বুদ্ধিবৃত্তিক উৎকর্ষের সাক্ষ্য বহন করে।

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, বাংলা একাডেমি প্রতিষ্ঠার পর থেকে তার সামর্থ্য অনুযায়ী বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের গবেষণায় কাজ করে যাচ্ছে। এই প্রতিষ্ঠানকে ঘিরে মানুষের প্রত্যাশা বিপুল। আজকের সাধারণ সভায়ও একাডেমির সদস্যবৃন্দ নানা মতামত ও প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন। আমরা আশা করি, আগামী দিনগুলোতে বাংলা একাডেমি সকলের সহযোগিতায় তার কার্যক্রম আরো সুচারুরূপে পালন করতে সক্ষম হবে।
সাধারণ পরিষদের বার্ষিক সভা উপলক্ষ্যে বাংলা একাডেমির বর্ধমান হাউসে নবনির্মিত বাংলা একাডেমি লোকঐতিহ্য জাদুঘর সর্বসাধারণের পরির্দশনের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

সাধারণ সভার কার্যক্রম সঞ্চালনা করেন বাংলা একাডেমির পরিচালক ডা. কে এম মুজাহিদুল ইসলাম এবং উপপরিচালক নূরুন্নাহার খানম-সহ একাডেমির অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

অপরেশ কুমার ব্যানার্জী
পরিচালক
জনসংযোগ, তথ্যপ্রযুক্তি ও প্রশিক্ষণ বিভাগ


Share with :

Facebook Facebook